1. provatsangbad@gmail.com : প্রভাত সংবাদ : প্রভাত সংবাদ
  2. mdjoy.jnu@gmail.com : dainikjoybarta.online : Shah Zoy
শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ০৮:৫৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কুমিল্লা কেন্দ্রীয় ঈদগাহে পবিত্র ঈদুল আজহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত কুমিল্লা দেবীদ্বারে আগ্নেয়াস্ত্রসহ ডাকাত সদস্য গ্রেফতার কুমিল্লায় ডিবি’র অভিযানে ৫২ কেজি গাঁজাসহ ২ মাদক কারবারি গ্রেফতার কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় কাভার্ডভ্যান চালক নি/হ/ত না ফেরার দেশে চলে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা নার্গিস আফজল কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডর আয়োজনে আন্তঃকলেজ হ্যান্ডবল প্রতিযোগিতা উদ্বোধন কুমিল্লা বিসিক শিল্পনগরীর রাস্তা ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার বেহাল দশা! চরম দুর্ভোগে শ্রমিকরা কুমিল্লায় পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসি কনফারেন্স অনুষ্ঠিত কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের আয়োজনে আন্তঃকলেজ সাঁতার প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত দাউদকান্দি ডিজিটাল প্রেসক্লাবের কমিটি ঘোষণা; শাহাদাত হোসেন সভাপতি, ইমরান মাসুদ সাধারণ সম্পাদক

কুমিল্লায় বিলুপ্তির পথে খেজুর গাছ!

  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ১১০ বার পড়া হয়েছে

গাজী জাহাঙ্গীর আলম জাবির।। কুমিল্লায় প্রায় বিলুপ্তির পথে খেজুর গাছ ও গাছিরা। দেখা যায়না আগের মতো কাক ডাকা ভোরে গাছিদের রস নিয়ে হাঁকডাক, রাখবেন খেজুরের রস! গ্রাম বাংলায় এখন আর চোখে পড়েনা সারি সারি খেজুর গাছে।

শীতের আগমনের শুরুতেই গ্রামীণ সংস্কৃতিতে নতুন মাত্রা যোগ হয় খেজুর গাছ হতে রস সংগ্রহের ধুম। গ্রামীণ জনপদের ঘরে ঘরে খেজুর রসের সমারোহ। গ্রামে এখন শহুরে ছোঁয়া। শহরায়নের আগ্রাসনে প্রকৃতির ঐতিহ্য খেজুর গাছ হারিয়ে যাচ্ছে। দিন যত যাচ্ছে খেজুর গাছও তত কমছে। খেজুর গাছের রস ও গুড় আমাদের সংস্কৃতির একটি বিশেষ অংশ। শীতের সকালে খেজুরের রস, রসের পিঠা, গুড়-মুড়ি আমাদের গ্রামীণ ঐতিহ্য।

কুমিল্লা ১৭ টি উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের আঁকা-বাঁকা রাস্তায় গত কয়েক বছর আগেও শত শত খেজুর গাছ ছিল। ওইসব গাছ থেকে শীতকালে যত খেজুরের রস সংগ্রহ হতো তা দিয়ে প্রয়োজনীয় চাহিদা মিটিয়ে তৈরি হতো খেজুরের গুড়, যা এখন আর দেখা মিলছে না। ফলে বাজার সয়লাব হয়ে গেছে নকল গুড়ে। এখন এসব গুড়েই তৈরি হচ্ছে পিঠা-পুলিসহ অন্যান্য মিষ্টান্ন। গাছি সংকট, অবহেলা, রক্ষণাবেক্ষণের অভাব ও নগরায়ণের প্রতিযোগিতায় ক্রমেই এখানে হারিয়ে যাচ্ছে খেজুর গাছ। শীতে খেজুরের রসের সঙ্গে গ্রামবাংলার প্রতিটি মানুষের সম্পর্ক বেশ পুরনো ও নিবিড়। তবে নানা কারণে গাছের রসের স্বাদ ভুলতে বসেছেন মানুষ। বর্তমানে ইটভাটার জ্বালানি হিসেবে খেজুরের গাছ ব্যবহার ও গাছি সংকটে তেমনভাবে আর রস সংগ্রহ করা হয় না। ফলে হারাতে বসেছে এক সময়ের রস সংগ্রহের ঐতিহ্য।

কুমিল্লা সদরের রঘুরামপুর গ্রামের গাছি মোতালেব  জানান, খেজুরের গাছ কমে যাওয়ায় তাদের চাহিদাও কমে গেছে। আগে এই কাজ করে ভালোভাবেই সংসার চালাতেন। এমনকি আগে যে আয় রোজগার হতো তাতে সঞ্চয়ও থাকতো, যা দিয়ে বছরের আরো কয়েক মাস সংসারের খরচ চলতো। এখন গ্রামে যে কয়েকটা খেজুর গাছ আছে তা বুড়ো হয়ে যাওয়ায় রস তেমন পাওয়া যায় না। রস বাজারে বিক্রির মতো আগের সেই অবস্থা নেই। তিনি আরো বলেন, কয়েক বছর আগে এক হাড়ি খেজুর রস বিক্রি করতাম ২০/৩০ টাকা। এখন খেজুর গাছ না থাকায় সে রসের দাম বেড়ে হয়েছে ১৭০/২০০ টাকা। এদিকে গাছি নুরুল ইসলাম বলেন, খেজুর গাছ বাণিজ্যিকভাবে রোপন করাতে কৃষকদের উৎসাহিত করতে হবে। বর্তমানে গাছির সংখ্যাও কমে এসেছে। এজন্য গাছি তৈরিতে মানুষকে উৎসাহিত করতে হবে। ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে খেজুরের রস, গুড়ের বিষয়ে সচেতন করতে এবং সরকারি, বেসরকারি উদ্যোগে খেজুর গাছ রোপণ ও পরিচর্যার উপর গুরুত্ব আরোপ করার জন্য সচেতন মহল আহ্বান জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন